ফন্ট সাইজ a a a

পিছনের রং A A A A

COVID-19(新型コロナウィルス感染症)の予防・感染拡大の防止のために【感染経路】飛沫感染・接触感染【行うべきこと】マスク着用・手指洗い【回避すべきこと(3密)】密閉・密集・密接

কোভিড-১৯ (নতুন করোনাভাইরাস রোগ) প্রতিরোধ এবং সংক্রমণ চলিয়ে দেওয়া প্রতিরোধের জন্য

কোভিড-১৯ হল একটি সংক্রামক ব্যাধি যা করোনাভাইরাস (সার্স-কোভ-২) এর আক্রমণে হয়ে থাকে আর মূলত জ্বর, কাশি ইত্যাদি উপসর্গগুলো দেখা দেয়। সাধারনত ফোঁটা দ্বারা অথবা সংস্পর্শ দ্বারা সংক্রমণ হয়। বিশেষ করে এই বিষয়গুলো কেয়ার রাখুন।
যেহেতু এটা বলা হচ্ছে যে, উপসর্গ দেখা দেওয়ার আগে সংক্রমণ ছড়িয়ে যায়, তাই সবসময় অন্যদের কাছ থেকে দূরে থাকা (Social distancing: সামাজিক দূরত্ব) এবং বাইরে যাওয়ার সময় মাস্ক পরা সহ সংক্রমণ রোগ প্রতিরোধের সাধারণ পদক্ষেপ নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ।

দৈনন্দিন জীবনে কী করতে হবে?

বিশেষ করে এই বিষয়গুলো মেনে চলুন

  • বাইরে বের না হওয়া

  • হাট ধোওয়া

  • কাশির সময় শালীনতা

  • বাতাস চলাচল বজায় রাখা

  • বন্ধ জায়গা এড়িয়ে চলা

  • ভিড় এড়িয়ে চলা

  • কাছাকাছি সংস্পর্শের পরিস্থিতি এড়িয়ে চলা

কোভিড-১৯ সহ সংক্রমণ রোগ প্রতিরোধের মৌলিক উপায় হল “হাট আঙ্গুল ধুয়ে নেওয়া” ও “মাস্ক পরা সহ কাশির সময় শালীনতা।” আউটব্রেকের মূল কারণ “বাতাস চলাচল ভালো নয়”, “লোকেদের ভিড়”, “অন্যদের কাছাকাছি সংস্পর্শে থাকার মতো পরিস্থিতি” (তিনটা C)। এমন পরিস্থিতি এলিয়ে চলুন, যেখানে বাতাস চলাচল ভালো নয় আর লোকেরা একে অন্যের কাছে থাকে। শূন্য C চেষ্টা করুণ।

ভাইরাসে পজিটিভ ব্যক্তির সঙ্গে সংস্পর্শ হয়েছে কিনা, তা জানার জন্য COVID-19 Contact-Confirming Application (COCOA) ব্যবহার করুণ।

COCOA হল নতুন করোনাভাইরাস সংস্পর্শ চেক করার জন্য অ্যাপ। এই অ্যাপ ব্যবহারকারী রাজি হওয়ায় স্মার্টফোনের নিকট টেলিযোগাযোগ ফিচার (Bluetooth) দিয়ে একে অন্যের পরিচয় ছাড়া কোভিড-১৯ পজিটিভ ব্যক্তির সঙ্গে সংস্পর্শ হয়েছে কিনা, তা জানতে ও পরীক্ষা সহ স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সাহায্য দ্রুত গ্রহণ করতে সাহায্য করে। যত বেশি লোক ব্যবহার করে, ততই শংক্রমন প্রতিরোধে কার্যকারী হবে। App Store অথবা Google Play-তে “contact-confirming application” দিয়ে অনুসন্ধান করুণ।

যদি জ্বর ইত্যাদি কোনো ঠাণ্ডার উপসর্গ দেখা দেয়, তাহলে স্কুল অথবা অফিসে যাবেন না, আর প্রতিদিন তাপমাত্রা মেপে লিখে রাখুন।

কোভিড-১৯ সম্বন্ধে কি আমার ভাষায় যোগাযোগ করা যায়?

আপনার উদ্দেশ্য, এলাকা, ভাষা অনুযায়ী যোগাযোগ করুণ।

জাপানে থাকা বিদেশীরা: জাপান সরকার ট্যুরিজম অর্গানিজেশন (JNTO) এর “Japan Visitor Hotline” (বিদেশী ভাষায় সমর্থনের কল সেন্টার)

電話番号

০৫০-৩৮১৬-২৭৮৭

(জাপানী, ইংরেজি, চীনা, কোরিয়ান)

সর্বশেষ তথ্য এই ওয়েবসাইট থেকেও দেখতে পারেন। (“সহজ জাপানী ভাষা”) শুধু ইংরেজি ও সরলীকৃত চীনা অক্ষর।

কোভিদ-১৯ হয়েছে বলে মনে হলে কী করতে হবে?

প্রথমে চিকিতসাকেন্দ্রে না গিয়ে আগে “ডায়াগনস্টিকস ও যোগাযোগ কেন্দ্র” (এলাকা অনুযায়ী নাম আলাদা হতে পারে) এর কাছে যোগাযোগ করুণ।

※পরিক্ষার প্রয়োজন সম্বন্ধে ডাক্তার সিদ্ধান্ত নেবেন।

  • যদি নিচের যেকোনো বিষয় হয়, তাহলে অবশ্যই যোগাযোগ করুণ।

    • শ্বাসকষ্ট, তীব্র ক্লান্তি, উঁচু জ্বর ইত্যাদি উপসর্গগুলোর মধ্যে একটা বেশি দেখা যায়। যেহেতু উপসর্গগুলো প্রত্যেকের আলাদা হয়, তাই উপসর্গ বেশি দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে যোগাযোগ করুণ।

    • গুরুতর হওয়ার সম্ভবনা বেশি* আর জ্বর, কাশি ইত্যাদি ঠাণ্ডার হালকা উপসর্গ দেখা যায়।

    • বয়স্ক ব্যক্তি

    • যাদের ডায়াবেটিস, হার্ট ফেইলিউর, শ্বসনতন্ত্র রোগ (যেমন COPD) ইত্যাদি স্বাস্থ্যগত সমস্যা থাকে

    • যারা ডায়ালাইসিস করে থাকেন

    • যারা ইমুনোসাপ্রেসিভ ওষুধ, এন্টি ক্যান্সার ঔষধ ইত্যাদি নিয়ে থাকেন

  • উপরের ব্যক্তিদের ছাড়া জ্বর বা কাশি ইত্যাদি ঠাণ্ডার হালকা উপসর্গ ক্রমাগত দেখা যাচ্ছে। যেহেতু উপসর্গগুলো প্রত্যেকের আলাদা হয়, তাই উপসর্গ বেশি দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে যোগাযোগ করুণ। ৪ দিন বা এর চেয়ে বেশি চললে অবশ্যই যোগাযোগ করুণ। যাদের নিয়মিত জ্বরের ঔষধ খেতে হয়, তারাও যোগাযোগ করুণ

  • আপনি যদি গর্ভবতী হয়ে থাকেন, অথবা আপনার সন্তান থাকে, তাহলে গুরুতর হওয়ার সম্ভবনা বেশি তাদের মতো আপনিও তাড়াতাড়ি ডায়াগনস্টিকস ও যোগাযোগ কেন্দ্রের কাছে যোগাযোগ করুণ। ছোট বাচ্চাদের জন্য শিশু বিশেষজ্ঞকে দেখানো ভালো, তাই ডায়াগনস্টিকস ও যোগাযোগ কেন্দ্র অথবা আপনার শিশু চিকিৎসাকেন্দ্রের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করুণ।

এলাকা অনুযায়ী “ডায়াগনস্টিকস ও যোগাযোগ কেন্দ্র” ছাড়া মেডিকাল অ্যাসোসিয়েশান অথবা ক্লিনিকেও যোগাযোগ করা যেতে পারে।
স্থানীয় কর্তৃপক্ষ, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র ইত্যাদির কাছ থেকে নির্দেশনা থাকলে সেটা মেনে চলুন।

“ডায়াগনস্টিকস ও যোগাযোগ কেন্দ্র”-র কাছে যোগাযোগ করার পরে কী হবে?

মূলত এভাবে হবে। এটা এলাকা অনুযায়ী আলাদা হতে পারে।

“ডায়াগনস্টিকস ও যোগাযোগ কেন্দ্র” যাদের কোভিড-১৯ রগে আক্রান্তের সন্দেহ থাকে, তাদের কাছ থেকে যোগাযোগ গ্রহণ করে।
যোগাযোগের বিষয় অনুযায়ী যদি রোগে আক্রান্তের সন্দেহ থাকে বলে বিবেচনা করা হয়, তাহলে সেই ব্যক্তিকে উপযুক্ত চিকিৎসার জন্য “ডায়াগনস্টিকস ও যোগাযোগ কেন্দ্র”-এ দেখানোর ব্যবস্থা করবে। প্রত্যেক জেলার প্রকাশিত পরীক্ষা ও যোগাযোগ কেন্দ্রের পেজের তালিকা রয়েছে, আর আপনার সব চেয়ে কাছাকাছি কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ করুণ।

যদি চিকিৎসাকেন্দ্র পরিদর্শন করেন, তাহলে কী মনে রাখতে হবে?

পরিদর্শনের সময় এই বিষয়গুলো মনে রাখুন।
কেউ কেউ একাধিক চিকিৎসাকেন্দ্র পরিদর্শন করেছে আর সংক্রমণ চলিয়ে গিয়েছে, তাই ডাক্তারের নির্দেশনা ছাড়া একাধিক চিকিৎসা কেন্দ্র পরিদর্শন করবেন না।

চিকিৎসাকেন্দ্র পরিদর্শন করার সময় মাস্ক পরুন, হাট আঙ্গুল ধুয়ে নিন, আর কাশির সময় শালীনতা* বজায় রাখুন।

*কাশি বা হাঁচি দেওয়ার সময় মাস্ক, টিস্যু, রুমাল, পোশাকের ভিতরে ইত্যাদি দিয়ে মুখ ও নাক ঢেকে রাখুন।